পাপুলকে মানবপাচারের দায়ে ৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে কুয়েতের সর্বোচ্চ আদালত

প্রকাশিত: ৬:২৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০২১
এমপি পদ চেয়ে করা পাপুলের রিট খারিজ

লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সাবেক এমপি কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলকে মানবপাচারের দায়ে ৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন কুয়েতের সর্বোচ্চ আপিল আদালত। একই সঙ্গে তাকে ২৭ লাখ কুয়েতি দিনার অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এর আগে অর্থ ও ঘুষের মামলায় তাকে চার বছরের কারাদণ্ড দেয় দেশটির আদালত।

রোববার (২৮ নভেম্বর) কুয়েতি সংবাদমাধ্যম আল-রাই এ তথ্য জানিয়েছে। এতে বলা হয়েছে, কারাদণ্ড শেষ হলে পাপুলকে নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। এ ঘটনায় পাপুল ছাড়াও দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্ডারসেক্রেটারি মেজর জেনারেল মাজেন আল-জাররাহ, জনশক্তি পরিচালক হাসান আল খিদরকেও ৭ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে তাদেরকে স্ব স্ব পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

তাছাড়া সাত বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে কুয়েতের সাবেক এমপি সালাহ খুরশিদকে। একই সঙ্গে তাকে প্রায় সাড়ে সাত লাখ কুয়েতি দিনার অর্থদণ্ড করা হয়েছে। পাপুলকে ২০২১ সালের ৬ জুন কুয়েতের পুলিশ গ্রেপ্তার করে। কুয়েতে তার বিরুদ্ধে দুটি মামলা হয়। একটি মামলা হয় ঘুষ লেনদেন ও মানব পাচারের অভিযোগে এবং অন্যটি করা হয় অর্থ পাচারের অভিযোগে। এর মধ্যে ঘুষ লেনদেনের দায়ে আগেই তার চার বছরের কারাদণ্ড ও ১৯ লাখ কুয়েতি দিরহাম অর্থদণ্ড করা হয়। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে পাপুল সংসদ সদস্য পদ বাতিল করা হয়। আরটিভি অনলাইন