জাতীয় অগ্রগতি-উন্নয়নে বিএনপি সহ সকল দলকে নির্বাচনে অংশগ্রহণের আহবান পরিকল্পনামন্ত্রীর

প্রকাশিত: ৭:১৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ৫, ২০২২

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, সংসদ নির্বাচন সন্নিকটে। সব দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুক এটা আমরা চাই। বিএনপিও নির্বাচনে আসুক। যদিও নির্বাচনে আসা না আসা প্রত্যেকটি দলের দলীয় সিদ্ধান্তের ব্যপার। তারা যদি আগামী নির্বাচনে না আসেন এটা হবে তাদের চরম ব্যর্থতা।

তিনি বলেন, আমরা আশা করবো নির্বাচনে অংশগ্রহণের মাধ্যমে জাতি গঠনে, জাতীয় অগ্রগতি-উন্নয়নে বিএনপিসহ সব দল শরিক হবেন। কেউ নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে যদি বলেন নির্বাচন হতে দিবো না, নির্বাচন বন্ধ করে দেবো এটা দেশবাসী মেনে নেবেন না। মাঠে নেমে খেলতে হবে। সূর্য ডুবার আগে মাঠে নামতে হবে। সময় থাকতে মাঠে নেমে খেলতে পারলে জনগণ ভাববে আপনারা প্রকৃত খেলোয়াড়। বিএনপি যদি সূর্যাস্তের পরে মাঠে নেমে খেলতে চান তাহলে এটা হবে তাদের চরম ব্যর্থতা।

শনিবার (৫ মার্চ) সকাল সাড়ে ১১টায় সুনামগঞ্জ জেলার শান্তিগঞ্জ উপজেলার পরিষদ প্রাঙ্গনে উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায়, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের অর্থায়নে নির্মিত স্মৃতিসৌধ ও সুবর্ণজয়ন্তী চত্ত্বর উদ্বোধনের সময় এসব কথা বলেন তিনি।

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির ব্যপারে মন্ত্রী বলেন, দেশের বাজারে দ্রব্যমূল্য বেড়েছে এটা অস্বীকার করা যাবে না। তবে, আমাদের সরকারের নজর এখন বাজার নিয়ন্ত্রণ করার দিকে। আমরা বাজারকে কঠোর নজরদারিতে রেখেছি। দ্রুত সময়ের মধ্যেই দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি হ্রাস করা হবে। দেশে প্রচুর উন্নয়ন হচ্ছে এটা মানুষ দেখছে। এতে জনগণ খুব খুশি। আগে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ ছিলো না। গ্রামে গ্রামে স্কুল কলেজ ছিলো না। এখন ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ, গ্রামে গ্রামে স্কুল কলেজ নির্মিত হচ্ছে। উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় দেশ এখন অনেকটাই এগিয়েছে।

রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধের বিষয়ে ভোট না দেওয়া প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ জাতিসংঘের সদস্য, কর্মচারি না। আমাদের দেশের স্বার্থসংশ্লিষ্টতার কথা চিন্তা করে ভোট দেওয়া না দেওয়ার হিসাব আমরা করব। মূলত:  দেশের বৃহৎ স্বার্থের কথা চিন্তা করে আমরা ভোট দেয়নি।  শুধু আমরা একা নয় আরো অনেক রাষ্ট্র আমাদের সঙ্গে একই অবস্থানে গিয়েছে। তারাও নিন্দা প্রস্তাবে ভোট দেওয়া থেকে বিরত থেকেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংঘাত, যুদ্ধ পছন্দ করেন না। আমরা রাশিয়া-ইউক্রেনের কাছে আবেদন করেছি আপনারা শান্তি প্রিয় অবস্থানে গিয়ে সমঝোতা করুন, বাংলাদেশ যতটুকু পারে সাহায্য করবে।

স্মৃতিসৌধ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী চত্ত্বর উদ্বোধনের সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ফারুক আহমদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আনোয়ার উজ্ জামান, উপজেলা স্বাস্থ ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (টিএইচও) ডা. জসিম উদ্দিন শরিফী, সুনামগঞ্জ জেলা এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মাহবুব আলম, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান নূর হোসেন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান দুলন রানী তালুকদার, শান্তিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজি মোক্তাদির হোসেন, উপজেলা এলজিইডির প্রকৌশলী আল নূর তারেক, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) শাহাদাৎ হোসেন ভূঁইয়া, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী আবদুর রব সরকার, উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা মোহাম্মাদ মাসুদ আহমেদ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা অশোক রঞ্জন পুরকায়স্থ, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ধিরাজ নন্দী চৌধুরী, জয়কলস ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল বাছিত সুজন, পাথারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম, শিমূলবাক ইউপি চেয়ারম্যান শাহিনুর রহমান প্রমূখ।

এর আগে সকাল ১০টায় উপজেলার দরগাপাশা ইউনিয়নের আক্তাপাড়া মিনা বাজারে ৯ কোটি ৯৯ লক্ষ টাকার আভ্যন্তরীন রাস্তা উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন মন্ত্রী এম এ মান্নান।